রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৯:১৫ পূর্বাহ্ন



নাসিরের স্ত্রী তামিমার বিরুদ্ধে এবার ডিজিটাল আইনে মামলার আবেদন
প্রকাশের সময়ঃ ২০২১-০৩-২২ ০৪:১১:৩১

ক্রিকেটার নাসির হোসেনের সদ্য বিবাহিত স্ত্রী বিমানবালা তামিমা সুলতানা তাম্মির বিরুদ্ধে এবার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন করেছেন তার সাবেক স্বামী মো. রাকিব হাসান।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও গণমাধ্যমে মিথ্যাচার, বিষোদগার ছড়ানোর অভিযোগ এনে রোববার রাতে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় এ মামলার আবেদন করেন তিনি।

উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস বলেন, গতকাল রাতে রাকিব লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছেন। বিষয়টি যাচাই করে দেখা হচ্ছে। সত্যতা মিললে মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হবে।

জানা গেছে, গত ১৯ মার্চ বেসরকারি একটি টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠানে একটি অনুসন্ধানী রিপোর্ট প্রচারিত হয়। সেখানে তাম্মি তার আগের স্বামী রাকিবের বিরুদ্ধে আপত্তিকর ও মানহানিকর মন্তব্য করেন।

পরবর্তীতে তামিমার এসব কথাবার্তা ইউটিউব ও ফেসবুকে শেয়ারের পর ভাইরাল হয়ে যায়।

মানহানিকর ও আক্রমণাত্মক বক্তব্যের কারণে তামিমার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদনের সিদ্ধান্ত নেন রাকিব।

১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসে তামিমাকে বিয়ে করেন জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার নাসির হোসেন। নতুন সংসার শুরু করতে না করতেই নাসিরের বিয়ে নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

বিয়ের সপ্তাহ না গড়াতেই রাকিব হাসান নামে এক যুবক নাসিরের স্ত্রীর নামে জিডি করেন। রাকিবের অভিযোগ– নাসির তার স্ত্রীকে বিয়ে করেছে। নাসিরকে বিয়ের আগে তামিমা রাকিবকে ডিভোর্স দেননি। ওই সংসারে তাদের আট বছরের কন্যাসন্তান রয়েছে। পরে অন্যের স্ত্রীকে বিয়ের অভিযোগ এনে আদালতে মামলা করেন রাকিব হাসান।

এর পর সংবাদ সম্মেলন করে তামিমা তার আগের স্বামীকে তালাক প্রসঙ্গে বক্তব্য দেন। তামিমার দাবি অনুযায়ী, ২০১৭ সালেই স্বামী রাকিব হাসানকে তালাক দেন। কিন্তু পুলিশ বলছে—২০১৮ সালের পাসপোর্ট আবেদনে স্বামী হিসেবে তিনি রাকিবের নামই উল্লেখ করেন।

পুলিশ জানায়, ২০১৭ সালেই স্বামী রাকিব হাসানকে তালাক দেওয়ার কথা জানিয়েছেন তামিমা। কিন্তু ২০১৮ সালের পাসপোর্ট আবেদনে স্বামী হিসেবে তিনি রাকিবের নামই উল্লেখ করেন। ফলে এখানে তালাকের বিষয়টি নানাভাবে প্রশ্নবিদ্ধ। দুটি তথ্য সঠিক হওয়ার সুযোগ নেই।

সৌজন্যে : যুগান্তর

ফেসবুক পেইজ