সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪২ অপরাহ্ন



সিরিজে দেশি আম্পায়ার
প্রকাশের সময়ঃ ২০২১-০২-০৪ ১১:৫৪:১৫

করোনাকালে আম্পায়ারিং নীতিমালায় বদল এনেছে আইসিসি। মহামারীর সময়ে আন্তর্জাতিক ভ্রমণে ঝুঁকি থাকায় বিদেশি আম্পায়ারদের বদলে স্বাগতিক দেশের আম্পায়ার ও ম্যাচ রেফারিদের ম্যাচ পরিচালনার নির্দেশনা দিয়েছে আইসিসি।

এই সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের আম্পায়ারদের জন্য সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজের দুই টেস্টেই ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে থাকবেন দেশি আম্পায়াররা।

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের ২১ বছরের পথচলায় এখনও আইসিসির এলিট প্যানেলভুক্ত হতে পারেননি কোনো বাংলাদেশি আম্পায়ার। আইসিসির সিদ্ধান্তকে বড় সুযোগ হিসেবে দেখছেন আম্পায়ারিং থেকে অবসর নেয়া জাতীয় দলের সাবেক বাঁ-হাতি স্পিনার এনামুলক হক মনি।

রোববার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই বড় সুযোগ। টেস্ট ম্যাচে আম্পায়ারিং করা সৌভাগ্যের এবং বিরাট অর্জন।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের আম্পায়ারদের জন্য দারুণ সুযোগ। এখন পর্যন্ত জানি স্বাগতিক আম্পায়াররাই আম্পায়ারিং করবেন। সুযোগ কাজে লাগিয়ে আমরা যদি ভালো করতে পারি, তাহলে বাংলাদেশি আম্পায়ারদের নিয়ে আইসিসির চিন্তায় পরিবর্তন আসবে।’

এখন পর্যন্ত টেস্ট ম্যাচ পরিচালনার সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশের চার আম্পায়ার। যখন একজন স্বাগতিক আম্পায়ার রাখার সুযোগ ছিল, তখন বাংলাদেশের হয়ে দুটি টেস্ট ম্যাচ পরিচালনা করেছেন এএফএম আখতারউদ্দিন। শওকাতুর রহমান, মাহবুবুর রহমান ও এনামুল হক মনি একটি করে ম্যাচ পরিচালনা করেছেন।

মুমিনুল হকের ডান হাতের বুড়ো আঙুলে অস্ত্রোপচার হয়েছে দুই সপ্তাহের বেশি সময় হয়ে গেল। তাকে আরও দুই সপ্তাহ পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে। এই সময়ে তিনি রানিংও করতে পারবেন না। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে অধিনায়ককে পুরোপুরি ফিট পাওয়া নিয়ে শঙ্কা থাকছে। যদিও চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নির্দিষ্ট সময়ের আগেই পুরোপুরি ফিট মুমিনুলকে পাওয়া যাবে। রোববার মুমিনুল বলেন, ‘আরও দুই সপ্তাহ পর ফিজিক্যাল ট্রেনিং করা যেতে পারে। এক মাসের আগে কিছুই করা যাবে না। এক মাস পর ট্রেনিং করতে পারব।’

মুমিনুল বলেন, ‘এখন অপারেশন করা আঙুল নাড়াতে পারছি। তবে আঙুলের যেখানে অস্ত্রোপচার হয়েছে, সেই জায়গায় ভাঁজ করতে আরও এক সপ্তাহ লাগতে পারে।’ উইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে ফিট হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী মুমিনুল, ‘আমি আশাবাদী। এখনও এক মাসের বেশি সময় আছে।’

ফেসবুক পেইজ